[calcutta] - মহাষ্টমীর ভোগে পনির থেকে পাঁঠা

  |   Calcuttanews

কোথাও খিচু়ড়ি, কোথাও পোলাও। অধিকাংশ জায়গাতেই নিরামিষ। তবে কোথাও কোথাও আমিষও হাজির। আবার কোথাও বা বাঙালিয়ানার রীতিরেওয়াজ পেরিয়ে একেবারে রাজপুতানার খাবার! গেরস্থ বাড়ি হোক বা বারোয়ারি, কলকাতার পুজোর ভোগে বৈচিত্র কম নয়।

পুজোয় সনাতন পন্থার মতো মহাষ্টমীর ভোগেও সাবেকিয়ানা মেনে চলে একডালিয়া এভারগ্রিন। সুগন্ধি চালের খিচুড়ি, পাঁচ রকম ভাজা, পায়েসের সঙ্গে হলুদ পোলাও, ধোকার ডালনা, পনিরের তরকারি...। পুরোপুরি সাবেকি নয়, তবে অষ্টমীর পুজোয় বাগুইআটি স্পোর্টস কাউন্সিলেও দুর্গার পাতে পড়ে সাদা পোলাও, আলুর দম, ভেজিটেবল চপ, পায়েস। যাদবপুর রামগড়ের ঘটকবাড়ির দুর্গা আমিষাশী। পুজোর তিন দিনই পাঁঠাবলি হয় সেখানে। শাক্তমতের ওই বা়ড়ির দুর্গাপুজোয় মহাপ্রসাদ থাকে রোজই।

বৈচিত্র রয়েছে মহানবমীর ভোগেও। সত্তরের দশকের কাছাকাছি বাংলাদেশ থেকে এসে খড়দহে থাকতে শুরু করে ভট্টাচার্য পরিবার। মহানবমীর দিনে ‘ইলিশ ভোগ’ সেই বাড়ির বিশেষত্ব। গৃহকর্তা স্মৃতিরঞ্জন ভট্টাচার্য জানান, নবমীতে মা দুর্গাকে ইলিশ ভোগ দেওয়া হয়। মহানবমীর পরে বেশ কিছু দিন ওই বাড়িতে আর ইলিশ ঢোকে না। আবার ইলিশ আনা হয় সেই সরস্বতী পুজোয়।...

ফটো - http://v.duta.us/zsnBOAAA

এখানে সম্পূর্ণ সংবাদ পড়ুন— - http://v.duta.us/9f99ugAA

📲 Get Calcuttanews on Whatsapp 💬