[west-bengal] - ঝুমুর-গানের চর্চা হবে বিশ্ববিদ্যালয়ে

  |   West-Bengalnews

ছৌয়ের পরে লোকসঙ্গীতের আর এক ধারা ঝুমুরকে এ বার পাঠ্যসূচিতে অন্তর্ভুক্ত করছে পুরুলিয়ার সিধো-কানহো-বীরসা বিশ্ববিদ্যালয়। বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানানো হয়েছে, চলতি শিক্ষাবর্ষেই ঝুমুরের উপরে ‘ডিপ্লোমা’ পাঠ্যক্রম চালু হচ্ছে। বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার নচিকেতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‘ঝুমুর নিয়ে এক বছরের ডিপ্লোমা কোর্স দু’টি সেমেস্টারে পড়ানো হবে। আসন ৫০টি।’’ তিনি জানান, বিজ্ঞপ্তি দিয়ে ভর্তি-প্রক্রিয়া শুরু হয়েছে।

মার্চে জেলায় প্রশাসনিক বৈঠকে এসে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে স্থানীয় লোকসংস্কৃতিকে গুরুত্ব দিতে পরামর্শ দেন। তার পরেই লোকসঙ্গীতের প্রাচীন ধারা ঝুমুর নিয়ে পাঠ্যক্রমের ভাবনা-চিন্তা শুরু করে বিশ্ববিদ্যালয়।

আপাতত বিশেষজ্ঞদের নিয়ে কমিটি গড়া হয়েছে। হয়েছে ‘সিলেবাস কমিটি’। তারা ‘সিলেবাস’ তৈরির পরেই ক্লাস শুরু হবে। নচিকেতাবাবু বলেন, ‘‘ঝুমুর নিয়ে এই পাঠ্যক্রম লোকসংস্কৃতির পুনরুজ্জীবন বলতে পারেন।’’ বিশ্ববিদ্যালয়ের বিশেষজ্ঞ কমিটির সদস্য তথা জেলার লোক-গবেষক সুভাষ রায়ের দাবি, বিদ্যাপতির পদাবলি এবং দামোদর মিশ্রের ‘সঙ্গীত দামোদর’-এ ঝুমুরের উল্লেখ রয়েছে। পুরুলিয়ায় দীর্ঘদিন ধরে আদিরসাত্মক ‘টাঁড় ঝুমুর’-এর প্রচলন রয়েছে। তার বিভিন্ন ভাগ হল—‘পেটিয়ামাড়া’, ‘খেমটা’, ‘হাঁকা’, ‘চৈতালি’, ‘ভাদরিয়া’, ‘মলহারিয়া’, ‘রিঝা’, ‘মাঠা’ ইত্যাদি। রয়েছে ‘দরবারি ঝুমুর’ও। তা মূলত রামায়ণ, মহাভারত, পুরাণ এবং দেবদেবীর মাহাত্ম্যের উপরে লেখা।...

এখানে সম্পূর্ণ সংবাদ পড়ুন— - http://v.duta.us/TJRsWwAA

📲 Get West-Bengalnews on Whatsapp 💬