[north-bengal] - ভাগের লড়াই নেতাদের, জেরবার এলাকাবাসী

  |   North-Bengalnews

শহর থেকে গ্রাম সবই যেন ভাগাভাগি করে বসে আছে। কেউ উদয়ন গুহের লোক, কেউ নিশীথ প্রামাণিকের লোক, তো কেউ নুর আলম হোসেনের লোক। দিনহাটা থেকে গীতালদহ যাওয়ার রাস্তায় ওকরাবাড়ির কাছে দাঁড়িয়ে থাকা এক যুবককে প্রশ্ন ছুঁড়তেই বেরিয়ে এল তেমনটাই।

আপনি কি তৃণমূল করেন? উত্তর এল ‘নিশীথ’দার তৃণমূল করি। আবার খানিক দূরে দাঁড়িয়ে থাকা একজন একই ভাবে জবাব দিলেন, “আমি আলমদার তৃণমূল করি।” এমনই উত্তর এল দিনহাটার বহু জায়গা থেকে। কেউ কেউ জানিয়ে দিলেন তাঁদের নেতা উদয়ন গুহ। বিরোধীরা কটাক্ষ করে অভিযোগ করেন, তৃণমূলে আর কেউ ‘নেতা’ নেই। সকলেই ‘সর্দার’। তাঁদের অভিযোগ, এই সর্দার’দের ‘দিনহাটা দখলে’র লড়াইয়ে আতঙ্কে দিন কাটছে মানুষের।

তৃণমূল নেতারা অবশ্য বিরোধীদের এমন অভিযোগ উড়িয়ে দিয়েছেন। তিনি দাবি করেন, গ্রামের দিকে কিছু লোকজন ব্যক্তিস্বার্থে গন্ডগোল করছে। এর মধ্যে রাজনীতি নেই। উদয়নবাবুর কথায়, “বিরোধীরা রাজনৈতিক ফায়দা নিয়ে এমন কথা বলছে। দ্বন্দ্বের সামান্য কিছু বিষয় আছে। তবে যেভাবে সমস্ত ঘটনাই গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব বলা হচ্ছে তা ঠিক নয়।” দিনহাটা- ১নম্বর ব্লকের তৃণমূলের সভাপতির দায়িত্ব রয়েছেন নুর আলম হোসেন। জেলা পরিষদের সদস্য নুর আলম উত্তরবঙ্গ উন্নয়ন মন্ত্রী রবীন্দ্রনাথ ঘোষের ঘনিষ্ঠ। তিনি বলেন, “দলের দেওয়া দায়িত্ব মেনেই কাজ করছি। দুষ্কৃতীরা দলের কর্মীদের উপরে নানা জায়গায় হামলা করার চেষ্টা করছে। আমরা প্রতিবাদ করছি।” তাঁর নিশানা যুব তৃণমূলের বহিষ্কৃত নেতা নিশীথ প্রামাণিকের দিকে। নিশীথবাবু অবশ্য জানান, তিনি বাইরে আছেন। তাঁর কথায়, “দলের ঊর্ধ্বে কেউ নন। যাঁরা দলের ক্ষতি করে নিজের প্রচার করছেন, খুব শীঘ্রই দল তাঁদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে।”...

ফটো - http://v.duta.us/ThTAcAAA

এখানে সম্পূর্ণ সংবাদ পড়ুন— - http://v.duta.us/R-RIfgAA

📲 Get North-Bengalnews on Whatsapp 💬