গাড়ির মধ্যে বুলেট, তরুণের কনুই ও ঘাড়ে ফুটো, অথচ পুলিশ বলল, মৃত্যু হয়েছে গাড়ি দুর্ঘটনায়!

  |   Calcuttanews

গাড়ি থেকে উদ্ধার হয়েছিল দমদমের বাসিন্দা দেবাঞ্জন দাসের দেহ। প্রাথমিক ভাবে পুলিশ জানিয়েছিল, গাড়ি দুর্ঘটনাতেই মৃত্যু হয়েছে বছর কুড়ির ওই তরুণের। কিন্তু ওই তরুণের পরিবার প্রথম থেকেই দাবি করছিল, দেবাঞ্জনকে খুন করা হয়েছে। পুলিশ যদিও পরিবারের সেই অভিযোগ নিতে চায়নি। কিন্তু ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট খুনের সম্ভাবনাকেই জোরালো করছে। আর গোটা ঘটনায় পুলিশেরই চূড়ান্ত গাফিলতি উঠে এসেছে।

পুলিশ সূত্রে খবর, বুধবার বিকেলেইদেবাঞ্জনের ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট হাতে পেয়েছে তারা। সেখানে ওই তরুণের দেহে দু'টি ফুটোর কথা উল্লেখ করা হয়েছে। একটি ঘাড়ের বাঁ-দিকে । অন্যটি, ডান হাতের কনুইয়ের কাছে। গাড়ি দুর্ঘটনায় মৃত্যু হলে যে ধরণের আঘাত থাকার কথা শরীরে, তেমন কোনও কিছুর অস্তিত্ব পাওয়া যায়নি বলেই জানা গিয়েছে পুলিশ সূত্রে।ময়নাতদন্তের প্রাথমিক রিপোর্ট খতিয়ে দেখার পর কমিশনারেটের শীর্ষ এক আধিকারিক বৃহস্পতিবারবলেন,''দেবাঞ্জনের দেহে ওই ফুটো দু'টি গুলি লেগেই হয়েছে বলে প্রাথমিক ভাবে আমাদের মনে হচ্ছে। পুরোটা খতিয়ে দেখছি।" তা হলে প্রথমেই কেন তাঁরা গাড়ি দুর্ঘটনায় মৃত্যু হয়েছে বলে দাবি করেছিলেন, তার কোনও সদুত্তর দিতে পারেননি ওই আধিকারিক। এমনকি ঘটনাস্থলে তদন্তে যাওয়া নিমতা থানার এএসআই গৌতম ঘোষ ওসিকে দেওয়া তাঁর প্রাথমিক রিপোর্টে গুলির কোনও উল্লেখই করেননি। উপরন্তু লিখেছিলেন, দুর্ঘটনাতেই মৃত্যু। এর পিছনে রহস্যজনক কিছু পাওয়া যায়নি।...

ফটো - http://v.duta.us/FLq8mwAA

এখানে সম্পূর্ণ সংবাদ পড়ুন- - http://v.duta.us/zlIP9AAA

📲 Get Calcuttanews on Whatsapp 💬