[24-paraganas] - টাকাটা এখন বড্ড দরকার, বলছেন বাসন্তী

  |   24-Paraganasnews

স্কুলে যাওয়ার সুযোগ পাননি মছলন্দপুরের বাসিন্দা বাসন্তী বিশ্বাস। তবে ছেলেমেয়েদের স্কুলে ভর্তি করেছিলেন তিনি। পরিচারিকার কাজ করে তিলতিল করে টাকা জমাচ্ছিলেন। কিন্তু এখন তাঁর হাত বেমালুম খালি।

রোজগারের ১০ হাজার টাকা তিনি রেখেছিলেন অর্থলগ্নি সংস্থা সারদায়। এজেন্ট পরিচিত বলে অল্প সময়ে টাকা দ্বিগুণ হবে এই আশায় লগ্নি করেছিলেন স্বামীবিচ্ছিন্না বছর আটত্রিশের মহিলা। মেয়ে এ বার মাধ্যমিক দিচ্ছে। ছেলেও স্কুল পড়ুয়া। সুদ দূরের কথা, আসল টাকার জন্য হন্যে হয়ে ঘুরছেন তিনি।

ইদানীং পরিচারিকার কাজ ছেড়ে ঢাক বাজান বাসন্তী। বললেন, ‘‘মেয়ের লেখাপড়ার খরচ, বিয়ের খরচ আছে। টাকাটা খুব দরকার জানেন।’’ তাঁর প্রশ্ন, ‘‘সরকার কি কিছুই করতে পারে না?’’ হাবড়া-সহ আশেপাশের বিভিন্ন এলাকায় ঘুরলে বোঝা যায়, বেআইনি সংস্থায় অর্থলগ্নি কোনও বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয়। স্থানীয় মানুষজন জানাচ্ছেন, বছর আট-দশ আগে সারদা, রোজভ্যালি, অ্যালকেমিস্টের পাশাপাশি ব্যাঙের ছাতার মতো বহু ভুয়ো সংস্থা গড়ে উঠেছিল। দিনমজুর, খেতমজুর, ব্যবসায়ী, চাকুরিজীবীরাও মোটা লাভের আশায় এই সব সংস্থায় লগ্নি করেছিলেন। যাঁদের অনেকেই বহু টাকা খুইয়েছেন। বেশ কিছু দিন আগে হাবড়ার বিশ্বাসহাটি এলাকার যুবক শেখর দেবনাথ, তাঁর মেয়ে ও স্ত্রীকে খুন করে নিজে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন। পুলিশের দাবি ছিল, ঋণের ফাঁদে পড়ে মানসিক অবসাদে ভুগছিলেন শেখর। এলাকার বাসিন্দারা জানান, চিটফান্ডে টাকা রেখে সর্বস্বান্ত হন শেখর।...

ফটো - http://v.duta.us/fXLRlQAA

এখানে সম্পূর্ণ সংবাদ পড়ুন— - http://v.duta.us/2XmyKAAA

📲 Get 24-Paraganasnews on Whatsapp 💬