চাল বাঁচাতে হয়রান স্কুল

  |   Midnaporenews

কোথায় রাখা হবে মিড ডে মিলের চাল। চিন্তায় ঘুম উড়ে যাওয়ার জোগাড় জারুলিয়া গ্রামের প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের।

চিন্তার কারণ গজরাজ। আগে চাল থাকত স্কুলের স্টোররুমে। তার দরজা ভেঙে চাল খেয়েছিল হাতি। এ বার চাল রাখা হয়েছিল শ্রেণিকক্ষে। বৃহস্পতিবার ভোরে সেখানেও পৌঁছে গেল একটি রেসিডেন্ট হাতি। ভাঙল স্কুলের ভবনের একাংশ। এ বার অবশ্য আর চাল খাওয়া হয়নি। গ্রামবাসীদের তাড়ায় পালিয়ে গিয়েছে হাতিটি।

ঝাড়গ্রাম শহর লাগোয়া জঙ্গলে দীর্ঘদিন ধরে ঘুরে বেড়াচ্ছে নিঃসঙ্গ রেসিডেন্ট হাতিটি। একটু খুঁড়িয়ে চলে বলে বাসিন্দারা নাম দিয়েছেন খড়ু। প্রায়ই সে ঝাড়গ্রাম-লোধাশুলি রাজ্য সড়কে উঠে পড়ে। রাতে হোক বা দিন। খিদে পেলেই লোকালয়েও ঢুকে পড়ে। যেমন এ দিন ভোর পৌনে চারটে নাগাদ আস্তাশুলির জঙ্গলের দিক থেকে জারুলিয়া গ্রামে ঢুকে পড়ে খড়ু। পাঁচিল ঘেরা স্কুলের সামনে গিয়ে শুঁড় দিয়ে গ্রিলের দরজা উপড়ে ফেলে। গ্রামবাসীরা জানান, খড়ু দরজা ভেঙে স্কুল চত্বরে ঢুকে প্রথমে মিড ডে মিলের চাল রাখার মজুত ঘরের দিকে গিয়েছিল। তারপর থমকে দাঁড়িয়ে সে শুঁড় তুলে যেন কিছু বোঝার চেষ্টা করে। এরপরে স্কুল ভবনের দিকে যায় সে। শুঁড় দিয়ে বারন্দার গ্রিল উপড়ে ফেলে। স্কুলের বারন্দার দু’টি গ্রিলের দরজাও বাঁকিয়ে খুলে ফেলে ভিতরে ঢোকার চেষ্টা করে হাতিটি। বারান্দা দিয়ে ঢুকলে স্কুলের পরপর চারটি শ্রেণিকক্ষে। এই খড়ুর জন্যই চাল রাখার জায়গা পরিবর্তন হয়েছে। চালের বস্তা ছিল চতুর্থ শ্রেণির কক্ষে। ওই শ্রেণিকক্ষের কাঠের দরজাটি ভাঙার আগেই রে-রে করে ছুটে আসেন গ্রামবাসীরা। তাড়া খেয়ে খড়ু স্কুল প্রাঙ্গণ ছেড়ে বেরিয়ে সিমলির জঙ্গলের দিকে পালিয়ে যায়।...

ফটো - http://v.duta.us/46tadgAA

এখানে সম্পূর্ণ সংবাদ পড়ুন— - http://v.duta.us/D5_EtQAA

📲 Get Midnaporenews on Whatsapp 💬